• মিঠাপুকুরে মামলার আসামিগন জামিনে ছাড়া পেয়ে বাদিকে হত্যর হুমকি

    মিঠাপুকুর থানার ৩১/৩০৮ মামলার আসামিগন জামিনে ছাড়া পেয়ে পুনরায় বাদিনি সহ তার লোকজনকে হত্যার হুমকি দিচ্ছে। এ ব্যাপারে বাদিনি হাসিনা বেগম গত ২৭ জুন/১৮ তারিখে জোবায়ের হোসেন(২৭), আব্দুল হালিম(৩৩), ইলিম মিয়া(৩০), ওয়ারেছ মিয়া(২৪) আব্দুস ছালাম(৬০), বিথী বেগম(২৭), আছমাউল বেগম(২৪) আসামি করে মিঠাপুকুর থানায় একটি জিডি করেছেন। যার জিডি নং১৩৩৫ তারিখ ২৭/০৬/২০১৮। থানা সুত্রে এবং ঘটনার বিবরনে প্রকাশ, পরিকল্পিত ভাবে মিঠাপুকুর উপজেলার ২ নং রানিপুকুর ইউনিয়নস্থ আবজালপুর গ্রামের আব্দুস ছালামের অন্যান্য পুত্রগন,আব্দুল আলিম এর স্ত্রী হাসিনা ও তার বোন হাবিবাকে উচ্ছেদ করার লক্ষ্যে গত ১০ জুন সন্ধায় জোবায়ের হাসিনার মাথায় ধারাল ছুরি দিয়ে চোট মারলে হাসিনার মাথা ফেটে যায় এবং রক্তা্ত্ব ও জখম হয়। অন্যান্য আসামিরা তার বোন হাবিবা,তার স্বামী সহ তাকেও বেধড়ক লাটি ও লোহার রড দিয়ে মারপিট করেন বলে প্রতাক্ষ দর্শিরা জানান। তাৎক্ষনিক ভাবে হাসিনাকে মিঠাপুকুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স্ ভর্তি করান। যার ভর্তি রেজিঃ নং২৪৩৭ তারিখ ১০/৬/১৮। এ ব্যারে মামলার আয়ু এস আই মাহবুব এর সাথে ০১৭২৬৮৪৪১২ মোবাইলে যোগাযোগ করলে ঘটনার সততা স্বীকার করেন। উক্ত মামলার ধার্যতারিখ ২২ জুলাই/১৮। উক্ত বিষয়টি পুলিশ বিভাগের উর্দ্ধতন কর্মকর্তার সু- দৃষ্ঠি কামনা করেছেন এলাকার অভিঞ্জমহল।

  • জাতীয় মানবাধিকার কমিশন চেয়ারম্যান মিঠাপুকুরে গ্রাম উন্নয়ন কার্যক্রম পরিদর্শন

    জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান রিয়াজুল হক গত ০৩ জুলাই ২০১৮ ইং বিকালে রংপুরের মিঠাপুকুর উপজেলায় ওয়াল্ড ভিশন প্রত্যন্ত অঞ্চলের মাঠ পর্যায়ে নিজেদের অধিকার ও উন্নয়নের এক দৃষ্টান্ত (গ্রাম উন্নয়ন কমিটি) কার্যক্রম পরিদর্শন করেন।  এসময় কমিশনের সদস্য নুরুন্নাহার ওসমানি, উপপরিচালক এম রবিউল ইসলাম, চেয়ারম্যান এর একান্ত সচিব নুসরাত জাহান, মিঠাপুকুর ইউ এন ও মামুন-অর-রশিদ, ওয়াল্ড ভিশন এর পরিচালক (প্রগ্রাম ডেভেলভমেন্ট) চন্দন জেড গমেজ ও উপপরিচালক নাবিয়া সুলতানা নুপুর প্রমুখ। গ্রাম উন্নয়ন একত্র হয়ে গ্রামের সামাজিক মানচিত্রের মাধ্যমে নিজেদের পদক্ষেপ ও ভবিষ্যৎ স্বপ্ন তুলে ধরেন কমিশনের চেয়ারম্যানের কাছে মিঠাপুকুরের ৩১টি গ্রাম উন্নয়ন কমিটির সদস্যবৃন্দ। ওয়াল্ড ভিশন পরিচালক চন্দন জেড গমেজ ২হাজার ৫শ গ্রাম উন্নয়ন কমিটি কিভাবে শিশু অধিকার সহ অন্যান্য ক্ষেত্রে ভূমিকা রেখে চলেছেন তা বক্তব্যে তুলে ধরেন। কমিশনের চেয়ারম্যান গ্রাম পর্যায়ে নিজেদের অধিকার ও উন্নয়নে এরুপ কমিটির ভূমিকা ভুয়শি প্রশংসা করেন। এই কমিটির ধারাবাহিক সম্মতি ও মডেল হিসাবে সারাদেশে কাজ করার দৃষ্টান্ত বলে তিনি মনে করেন। ইউ এন ও মামুন-অর-রশিদ ওয়াল্ড ভিশন ও গ্রাম উন্নয়ন কমিটির এই উদ্যোগকে আরও সাফল্য মন্ডিত করার প্রতিশ্রতি ব্যক্ত করেন।

  • গোপালগঞ্জে বশেমুরবিপ্রবি ক্যাম্পাস ফের অশান্ত আজও, ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগ

    গোপালগঞ্জে অবস্থিত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে গতকাল বুধবার রাতে শিক্ষার্থী ও স্থানীয়দের মধ্যে সংঘর্ষে দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে গোপালগঞ্জ-টুঙ্গিপাড়া সড়ক অবরোধ করেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে গোপালগঞ্জ-টুঙ্গিপাড়া সড়কে আগুন জ্বালিয়ে অবরোধ করে শিক্ষার্থীরা। তারা বুধবারের ঘটনায় জড়িতদের গ্রেপ্তার ও তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানায়।শিক্ষার্থীরা সড়ক অবরোধের সময় একটি মোটর সাইকেলে আগুন ধরিয়ে দেয় এবং সোবহান সড়কে অবস্থিত বেশ কয়েকটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলা ও ভাঙচুর চালায়। এ সময় একটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করে।উল্লেখ্য, গতকাল বুধবার বিকেলে ফুটবল খেলাকে কেন্দ্র করে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও স্থানীয়দের মধ্যে তিন ঘণ্টা ব্যাপী ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষ হয়।বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র মো: নজরুল ইসলাম জানান, শুধু ফুটবল খেলাকে নিয়ে নয়, পুকুর পাড়ে থাকা বহিরাগতরা মেয়েদের উত্ত্যক্ত করাকে কেন্দ্র করে বুধবার এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। অবশ্য দায়িত্ব নিয়ে এ বিষটির ব্যাপারে কেউ কিছু বলেনি। আর এ নিয়ে উত্তেজিত শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে ১০-১৫টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ভাঙচুর চালিয়ে তাতে আগুন ধরিয়ে দেয়।স্থানীয়রা বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি গাড়িতে ভাঙচুর চালানোসহ দুটি মোটর সাইকেলে আগুন ধরিয়ে দেয়। সন্ধ্যা ৭টা থেকে রাত ১১টা অবধি এই তান্ডব চলতে থাকে বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায়। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি তাদের নিয়ন্ত্রণে আনে।বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় এখনো উত্তেজনা বিরাজ করছে। যে কোনো পরিস্থিতি মোকাবেলায় এলাকায় সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।গোপালগঞ্জ সদর থানার ওসি মো: মনিরুল ইসলাম জানান, পরিস্থিতি এখন অনেকটা শান্ত রয়েছে। কোনো পক্ষ থেকে এখনো মামলা দায়ের করা হয়নি। এ রিপোর্ট লেখার সময় পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ও গোবরা ইউনিয়নের গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের সমঝোতার বৈঠক চলছিল।

  • গোপালগঞ্জে ২০ ও ২১ জুলাই সাংস্কৃতিক উৎসব শুরু

    গোপালগঞ্জে শুরু হতে যাচ্ছে দুই দিনব্যাপী সাংস্কৃতিক উৎসব। আগামী ২০ ও ২১ জুলাই গোপালগঞ্জ শিল্পকলা একাডেমিতে এ সাংস্কৃতিক উৎসব অনুষ্ঠিত হবে। ২০ জুলাই আলোচনা সভা, রবীন্দ্রসংগীত, নজরুল সংগীত, আধুনিক গান, একক আবৃত্তি এবং ২১ জুলাই পল্লীগীতি, লালনগীতি, মুর্শিদী, জারি, সারি, কবিগান ও সমাপনী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হবে। সমাপনী অনুষ্ঠানে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে অংশ গ্রহণকারীদের মধ্য থেকে বিজয়ীদের প্রশংসাপত্র দেওয়া হবে।এ ছাড়া ওই দিন বিকেল ৫টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত চলা এসব অনুষ্ঠানের ফাঁকে সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন মূলক কর্মকান্ড প্রজেক্টরের মাধ্যমে দর্শনার্থীদের দেখানো হবে। এ উপলক্ষে গোপালগঞ্জ সার্কিট হাউজ মিলনায়তনে প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত হয়।জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মোখলেসুর রহমান সরকারের সভাপতিত্বে সভায় অন্যদের মধ্যে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) আব্দুল্লাহেল বাকী, সহকারী পুলিশ সুপার মো: মাসুদুর রহমান, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোছা: শাম্মি আক্তার, সরকারি বঙ্গবন্ধু কলেজের বাংলা বিভাগের অধ্যাপক মো: মঈন আহম্মেদ, রিপোর্টার্স ফোরামের সাধারণ সম্পাদক এস এম নজরুল ইসলামসহ জেলার বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

  • গোপালগঞ্জে বঙ্গবন্ধু প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ফুটবল খেলা নিয়ে সংঘর্ষে আহত ২০

    গোপালগঞ্জ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ফুটবল খেলাকে কেন্দ্র করে ছাত্র ও বহিরাগতদের মধ্যে সংঘর্ষ, দোকানপাট ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটেছে। এ সব ঘটনায় অন্তত ২০ জন আহত হয়েছে। এর মধ্যে ৫ জনকে গোপালগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।এ সময় কয়েকটি দোকান ও দুইটি মটর সাইকেল ভাংচুর করে আগুন ধরিয়ে দেয়া হয়। ফায়ার সার্ভিস আগুন নিয়ন্ত্রণ করছে বলে ফায়ার সার্ভিস সূত্রে জানা গেছে। এদিকে, পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে কয়েক রাউন্ড রাবার বুলেট নিক্ষেপ করেছে। বুধবার সন্ধ্যা ৭টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস ও আশ পাশের এলাকায় এসব ঘটনা ঘটে।স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, বুধবার বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে ছাত্র ও বহিরাগতরা গোবরা গ্রামের যুবকরা ফুটবল খেলছিলো। খেলার এক পর্যায়ে তাদের মধ্যে কথা কাটাকাটি ও হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। পরে ছাত্ররা ক্যাম্পাসের পুকুরে গোসল করতে স্থানীয় বহিরাগতরা কয়েকজন ছাত্রকে মারপিট করে। এ খবর বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রদের মধ্যে ছড়িয়ে পড়লে ছাত্ররা একত্রিত হয়ে ক্যাম্পাসের বাহিরে সোবহান সড়কে কয়েকটি দোকানে হামলা ও ভাংচুর চালায়।পরে স্থানীয় গোবরা গ্রামের লোকজন বিশ্ববিদ্যালয়ে মেইন ফটকে অবস্থান নিয়ে ছাত্রদের মারপিট করে। সন্ধ্যা থেকে রাত ১১টা পর্যন্ত উভয় গ্রুপ ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ায় লিপ্ত হয়। এ সময় পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে কয়েক রাউন্ড রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন প্রত্যক্ষদর্শী জানিয়েছেন, তারা বেশ কয়েক রাউন্ড গুলির শব্দ শুনেছেন।গোপালগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো: মনিরুল ইসলাম রাবার বুলেট নিক্ষেপের কথা অস্বীকার করে বলেন, পরিস্থিতি এখন শান্ত। ফায়ার সার্ভিস আগুন নিয়ন্ত্রণে এনেছে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

  • পঞ্চগড়ে ইফতার কেনাকাটায় উপচেপড়া ভীড়

    সারাদেশের ন্যায় পঞ্চগড়ে জমে উঠেছে পহেলা রমজান শরীফের ইফতার কেনাকাটা। ইফতারী সময়ের প্রায় ৩০ থেকে ৪৫ মিনিট পূর্বে দোকানগুলিতে ভীড়ের কাতারে দাড়িয়ে থাকছে রোযাদ্বার ব্যক্তিরা। ১ রমজান/১৪৩৯ শুক্রবার সরেজমিনে গিয়ে দেখাযায়, পঞ্চগড় বাজারের নিউ মৌচাক, রহমানিয়া, করতোয়া হোটেলের বিভিন্ন প্রকার আইটেমের ইফতারী পণ্যে শতাধিক মানুষের ভীড়। অন্যদিকে পঞ্চগড় সদর থানাধীন জগদল বাজারেও দোকান গুলিতে ভীড়ের আস্তানা। অত:পর পঞ্চগড় থানাধীন সাতমেড়া ইউপির দশমাইল বাজারে গাড়ী থেকে নেমেই দেখা পড়ে মাফিজার রহমানের ইফতারীর দোকান। পবিত্র রমজানে তার ইফতারী দোকান সম্পর্কে জানতে চাইলে, তিনি জানান, আমি প্রতি বছরের ন্যায় এবারও দোকান ধরেছি। আমার পেশা মূলত চায়ের দোকানদারী। আমি চা, নেমকি, জিলাপি ইত্যাদি বিক্রি করি। তবে, প্রতি বছর রমজানে ইফতারী দোকান করি। এতে আমার লাভের পাশাপাশি অনেক নেকিরও কাজ হয় জানান তিনি। কারণ আমি দোকান না দিলে রোযাদার ব্যক্তিরা ইফতারী নিতো কিভাবে মনে করেন মফিজার রহমান। অপরদিকে, পঞ্চগড় সদর জেলাধীন সাতমেড়া ইউপির শিতলী হাসনা গ্রামের মো: খায়রুল ইসলাম জানান, গত হয়ে যাওয়া বছরগুলোর চেয়ে এবছর মানুষ অনেক সুখে দিন কাটাচ্ছে। আগের তুলনায় এখন অভাব নেই বললেই চলে। পঞ্চগড়ে রয়েছে বিভিন্ন কলকারখানা, পাথরের খনি, চয়ের বাগান ইত্যাদি। তাই এখন মানুষের মুখে শুনা যায় বাপ দাদারা নামায রোযা ঠিক ভাবে না আদায় করে দুনিয়া ছেড়ে চলে গেছেন আর আমরা এখন সুখি রোযা কেন দিব না? বারো মাসে একটি মাস মাত্র রোযা।

  • ফুলবাড়ীতে ভোক্তা অধিকারের বাজার তদারকি ও জরিমানা আদায় ॥

    দিনাজপুর ফুলবাড়ী উপজেলায় জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের উদ্যোগে অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে। গতকাল ১৯ মে শনিবার দুপুরে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর দিনাজপুর কার্যালয়ের সহকারি পরিচালক মমতাজ বেগমের নেতৃত্বে এই অভিযান পরিচালনা করা হয়। এ সময় ফুলবাড়ী পৌরশহরের পশ্চিম গৌরিপাড়া ও মধ্য গৌরিপাড়া এলাকার বিজলী লাচ্ছা সেমাই কারখানা, জলসা লাচ্ছা সেমাই কারখানা ও বাবা লাচ্ছা সেমাই কারখানায় অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে সেমাই তৈরী ও বিক্রি করার অভিযোগে জাতীয় ভোক্তা অধিকার আইনে অভিযান চালিয়ে ১৩ হাজার টাকা জরিমান আদায় করা হয়। এছাড়াও মদিনা মনোয়ারা ফাহমিদা মিলস্ এর সত্ত্বাধিকারী আল হাজ্ব শামসুল হক কে সংশ্লিষ্ট আইনে সর্তকতা ও পরার্মশ প্রদান করা হয়। অভিযান চলা কালিন সময়ে সঙ্গে ছিলেন, দিনাজপুর জেলা ক্যাবের নির্বাহী সদস্য মাসউদ রানা এবং স্থানীয় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্যানেটারি ইন্সপেক্টর জগদীশ চন্দ্র সহ দিনাজপুর জেলার পুলিশ ফোর্স।

  • রোটারী ক্লাবে রনজিৎ কুমার সিংহ ও শামীম কবিরকে সংবর্ধনা প্রদান

    রোটারী ক্লাব অব দিনাজপুর আয়োজিত নিমতলাস্থ রোটারী ক্লাব ভবন সভাকক্ষে ক্লাবের মাসিক সভায় দিনাজপুরের ঐতিহ্যবাহী একমাত্র শিশু হাসপাতাল অরবিন্দ শিশু হাসপাতালের সদ্য নির্বাচিত সহ-সভাপতি পদে রোটাঃ রনজিৎ কুমার সিংহ ও সাধারণ সম্পাদক পদে নির্বাচিত রোটাঃ শামীম কবিরকে সংবর্ধনা প্রদান করা হয়।  রোটারী ক্লাব অব দিনাজপুরের ক্লাব মাসিক সভায় ক্লাব প্রেসিডেন্ট রোটাঃ মোঃ সহিদুর রহমান পাটোয়ারী মোহন এর সভাপতিত্বে সংবর্ধনা প্রদান অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন প্রেসিডেন্ট ইলেক্টঃ রোটাঃ আব্দুস সাত্তার, পিপি রোটাঃ মোঃ মোমিনুল ইসলাম, রোটাঃ আব্দুল মান্নাফ ও পিপিঃ রোটাঃ আব্দুস সামাদ তুহিন। বক্তারা বলেন, রোটারী ক্লাবের সদস্যরা আর্ত-মানবতার কল্যাণে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে সম্পৃক্ত হয়ে কাজ করে যাচ্ছেন। এছাড়া রোটারী ক্লাবের সদস্যরা আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে তারা যথেষ্ট অবদান রাখছেন। রোটাঃ রনজিৎ কুমার সিংহ ও রোটাঃ শামীম কবির তাদের অনুভূতি ব্যক্ত করতে গিয়ে বলেন, অরবিন্দ শিশু হাসপাতালে শিশু ও মায়ের সেবা প্রদানে আমরা রোটারী’র আদর্শকে কাজে লাগাতে অঙ্গীকারবদ্ধ। সেবার মনোভাব নিয়ে শিশু হাসপাতালে সততা ও নিষ্ঠার সাথে কাজ করে যেতে চাই।

  • দিনাজপুুরে হোটেল রেঁস্তোরা গুলোতে ইফতার সামগ্রী বিক্রয়ে উপচে পড়া ভীড়

    প্রতি বছরের মত এবারো পবিত্র মাহে রমজান মাসে দিনাজপুর হোটেল রেঁস্তোরাগুলো নানা ধরনের ইফতার সামগ্রী বিক্রি করাতে উপচে পড়া ভীড় লক্ষ্য করা গেছে। রমজানের প্রথম দিনে দিনাজপুর শহরের ঐতিহ্যবাহী হোটেল রেঁস্তোরা ও মিষ্টির দোকান দিলশাদ, পাবনা সুইটস্, সানন্দা, নিউ হোটেল, মাসুমের হোটেল খাওয়া দাওয়া, মিষ্টি মুখ, মা মিষ্টান্ন ভান্ডারসহ বিভিন্ন দোকানে ইফতার ক্রয় করতে গ্রাহক মুসল্লী ও রোজাদারদের উপচে পড়া ভীড় লক্ষ্য করা গেছে। এদিকে দিনাজপুর শহরের হাসপাতাল মোড় সংলগ্ন সবার সেরা স্বাদ ঐতিহ্যবাহী দিলশাদ ইফতার বিক্রিতে পবিত্র মদিনা শরীফ মসজিদে নববী’র আদলে দোকানের সম্মুখে সজ্জিত করেছে মসজিদের মিনার ও পবিত্র কোরআন শরীফ। তা মুসল্লীবৃন্দ ও রোজাদার ব্যক্তিদের মাঝে চমক সৃষ্টি করেছে। রমজানের ফজিলতে নিয়ম-নীতি রক্ষা করে দিনাজপুর শহরের হোটেল রেঁস্তোরাগুলো নানা ধরনের ইফতার সামগ্রী ঐতিহ্যের সাথে বিক্রি করে আসছে।

  • জাতীয় শ্রমিকলীগ ফার্মহাট সার গোডাউন কমিটির নেতৃবৃন্দের মতবিনিময়

    জাতীয় শ্রমিক লীগ দিনাজপুর খোসালপুর ফার্মহাট বিএডিসি সার গোডাউন শাখা কমিটির নবনির্বাচিত নেতৃবৃন্দ জাতীয় শ্রমিক লীগ দিনাজপুর জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক মোঃ আলাউদ্দিনকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।  গতকাল দিনাজপুর শহরের সিএসডি খাদ্য গোডাউন সম্মুখ সড়কে জেলা শ্রমিক লীগের দলীয় কার্যালয়ে মতবিনিময় এবং জাতীয় শ্রমিক লীগ দিনাজপুর জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক মোঃ আলাউদ্দিনকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান জাতীয় শ্রমিক লীগ দিনাজপুর খোসালপুর ফার্মহাট বিএডিসি সার গোডাউন শাখার নবনির্বাচিত সভাপতি মিজান ভুইয়া, সাধারণ সম্পাদক মোঃ আজাদ ভুইয়া, সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ সফিকুল ইসলামসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ। এ সময় উপস্থিত ছিলেন জাতীয় শ্রমিক লীগ দিনাজপুর জেলা শাখার দপ্তর সম্পাদক মোঃ মঞ্জুরুল হাসান সানু, শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক মোকারম হোসেন হিটলার, জেলা নির্মাণ শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ সেলিম প্রমুখ।

  • কাহারোলে বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী ও অটিস্টিক বিদ্যালয়ের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যানকে সংবর্ধনা

    দিনাজপুরের কাহারোল উপজেলার ২নং রসুলপুর ইউনিয়ন পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান সঞ্জয় কুমার মিত্রকে সংবর্ধনা প্রদান করেছে রামপুর বুদ্ধি প্রতিবন্ধী ও অটিস্টিক বিদ্যালয়। গতকাল কাহারোল উপজেলার রামপুর বুদ্ধি প্রতিবন্ধী ও অটিস্টিক বিদ্যালয়ের উদ্যোগে কাহারোল উপজেলার ২নং রসুলপুর ইউনিয়ন পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান সঞ্জয় কুমার মিত্রকে ফুলেল সংবর্ধনা প্রদান করেন রামপুর বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী ও অটিস্টিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মিস্টন রায়, ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি পরেশ চন্দ্র রায়সহ অন্যান্য শিক্ষক ও কর্মচারীবৃন্দ।

  • দিনাজপুরে রোটারী ক্লাবে সংবর্ধনা

    রোটারী ক্লাব অব দিনাজপুর আয়োজিত নিমতলাস্থ রোটারী ক্লাব ভবন সভাকক্ষে ক্লাবের মাসিক সভায় দিনাজপুরের ঐতিহ্যবাহী একমাত্র শিশু হাসপাতাল অরবিন্দ শিশু হাসপাতালের সদ্য নির্বাচিত সহ-সভাপতি পদে রোটাঃ রনজিৎ কুমার সিংহ ও সাধারণ সম্পাদক পদে নির্বাচিত রোটাঃ শামীম কবিরকে সংবর্ধনা প্রদান করা হয়। রোটারী ক্লাব অব দিনাজপুরের ক্লাব মাসিক সভায় ক্লাব প্রেসিডেন্ট রোটাঃ মোঃ সহিদুর রহমান পাটোয়ারী মোহন এর সভাপতিত্বে সংবর্ধনা প্রদান অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন প্রেসিডেন্ট ইলেক্টঃ রোটাঃ আব্দুস সাত্তার, পিপি রোটাঃ মোঃ মোমিনুল ইসলাম, রোটাঃ আব্দুল মান্নাফ ও পিপিঃ রোটাঃ আব্দুস সামাদ তুহিন। বক্তারা বলেন, রোটারী ক্লাবের সদস্যরা আর্ত-মানবতার কল্যাণে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে সম্পৃক্ত হয়ে কাজ করে যাচ্ছেন। এছাড়া রোটারী ক্লাবের সদস্যরা আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে তারা যথেষ্ট অবদান রাখছেন। রোটাঃ রনজিৎ কুমার সিংহ ও রোটাঃ শামীম কবির তাদের অনুভূতি ব্যক্ত করতে গিয়ে বলেন, অরবিন্দ শিশু হাসপাতালে শিশু ও মায়ের সেবা প্রদানে আমরা রোটারী’র আদর্শকে কাজে লাগাতে অঙ্গীকারবদ্ধ। সেবার মনোভাব নিয়ে শিশু হাসপাতালে সততা ও নিষ্ঠার সাথে কাজ করে যেতে চাই।

  • ঈঁশ্বরদীর সলিমপুর ইউনিয়ন পরিষদকে সজিয়ে তুলেছেন ইউপি চেয়ারম্যান

    সলিমপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ আব্দুল মজিদ তাঁর পরিষদকে নান্দনিক পরিবেশে সাজিয়েছেন তুলেছেন। ২০১৬ সালে তিনি দায়িত্ব গ্রহন করার পর তাঁর পরিষদে একটি উন্মুক্ত মঞ্চ নির্মাণ , ভবন মেরামত, ও ফুলের বাগান তৈরি করেন।এছাড়াও পুরো ইউনিয়ন পরিষদ সিসি ক্যামেরার আওতায় নিয়ে আসেন।    তিনি জানান বর্তমান প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা যে পরিমান বরাদ্দ দিয়েছেন তাতে এ বছরেই সলিমপুর ইউনিয়নে শতেরো কিলোমিটার রাস্তার কাজ করা হয়েছে। বাকী রাস্তার কাজ আগামী বাজেটে শেষ করা হবে।   এছাড়াও তিনি রাস্তায়, হাট-বাজারে সর্বমোট বাহাত্তরটি সোলার স্ট্রীট লাইট স্থাপন করেন। তিনি তাঁর ইউনিয়নের আঠারো টি স্কুলে বিনামূল্যে ছাত্র-ছাত্রীদের ব্লাডগ্রুপ টেস্ট করান। ও চোখ পরিক্ষা করে চশমা প্রদান করেন।   বর্তমান সরকার যেভাবে কাজ করে যাচ্ছে তাতে খুব দ্রুত ঈঁশ্বরদী উপজেলার সলিমপুর ইউনিয়নকে মডেল ইউনিয়ন হিসেবে রুপান্তর করা সম্ভব বলে তিনি মনে করেন।

  • সালথার সাধারন জনগন দলিল লেখকদের কাছে জিন্মি

    ফরিদপুর জেলার সালথা উপজেলার সাধারন জনগন দলিল লেখকদের কাছে প্রতিদিন প্রতারিত হচ্ছে। জমি ক্রেতাদের নিকট থেকে বিভিন্ন অজুহাত দেখিয়ে দলিল সম্পাদন বাবত লেখক সমিতি আদায় করছে অতিরিক্ত টাকা। দলিল লেখকরা একদিকে ক্রেতা-বিক্রেতা দের ধোঁকাদিয়ে বোকা বানিয়ে বেশী অর্থ আদায় করছে অন্যদিকে কারসাজি করে দলিল সম্পাদন করছে। একদিকে সমিতির মাধ্যমে নিদ্ধারিত আয় অন্যদিকে ক্লায়েন্টদের নিকট থেকে অতিরিক্ত অর্থ আদায়-এ দুয়ের মাঝে দলিল লেখকরা হাতিয়ে নিচ্ছে লক্ষ লক্ষ টাকা। জানা গেছে দলিল লেখক সমিতি , নিজেদের তৈরীকরা নিয়মে নাল, খাল, বিল , বাড়ি ইত্যাদি জমির শ্রেনী বিভাজন তৈরী না করে সকল ক্ষেত্রে আড়াই পার্সেন্ট ও অফিস এক পার্সেন্ট করে টাকা আদায় করছে। সমিতির মূল নীতি হলো একতাই শক্তি সূতারাং অতিরিক্ত বলে কিছু নেই-বাধ্যতামূলক এ টাকাই দিতে হবে যদি দলিল রেজিষ্ট্রি করতে হয়। বিশ^স্ত সূত্রে জানাযায় বর্তমানে যে অতিরিক্ত রেট আদায় করা হচ্ছে তারথেকে আরো বাড়ানোর পাঁয়তারা চলছে। হেবা দলিলের ক্ষেত্রে ৫ থেকে ৬% টাকা-বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। সর্বনি¤œ ৪ লাখ টাকার দলিল হলে ৬% দিতে হবে আর এর বেশী টাকার দলিলের ক্ষেত্রে ৫% পর্যন্ত বিবেচনা করা হচ্ছে বলে জানা যায়। সাফ কবলা ও দানপত্র দলিলে সরকারী খরচ-৮০০০ (আট হাজার) টাকা স্টাম্প ফিস সহ এবং হেবা দলিল প্রতি খরচ-৭০০ (সাত শত) টাকা - স্ট্যাম্প ফিসহ নিদ্ধারিত হলেও একই রেট প্রদান করতে হবে। শ্রেনীভিত্তিক সরকার নির্দ্ধারিত রেইটের তোয়াক্কা না করে নাল, বাড়ি খাল যাই থাকুকনা কেন দলিল লেখক সমিতি নিদ্ধারিত ৬% টাকা পরিশোধ করতে হিমশিম খেতে হচ্ছে জমি ক্রেতা-বিক্রেতাদের। দলিল লেখক সমিতিকে প্রতি লাখে কবলা ও দানপত্রের ক্ষেত্রে জমাদিতে হয় ২০০ (দুই শত টাকা) ও হেবা দলিলে সমিতিতে প্রতি লাখে আদায় ১০০০ (এক হাজার) টাকা। মাস শেষে এই টাকা দলিল লেখকদের মধ্যে পয়েন্ট অনুযায়ী ভাগাভাগি করা হয়। প্রতি মাসে সমিতি থেকে কিছু সংখ্যক দলিল লেখকের আয় ১ লক্ষ টাকারও বেশী এবং অন্যান্য দলিল লেখক এর নূন্যতম আয় ৫০ হাজার টাকা। পয়েন্ট হিসেবে ২/৩ লক্ষ টাকাও আয় আছে কারো কারো সালথা সাব রেজিষ্ট্রি অফিস থেকে। সরকার কতৃক নিদ্ধারিত ফি থাকা সত্বেও দলিল লেখকরা সমিতির ইচ্ছামাফিক রেইটের ধূয়া দিয়ে অতিরিক্ত টাকা আদায় করে রাতারাতি আঙুল ফুলে কলাগাছ হয়ে উঠেছে ,আর কারসাজি করে মিথ্যা তথ্যদিয়ে অত্যাচারের খড়গ ক্রেতা-বিক্রেতাদের ঘাড়ে চাপিয়ে দিয়ে বসে আছে বলার , দেখার কেউ নেই- নেই কোন জবাবদিহীতা। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সাব রেজিষ্ট্রি অফিস সংশ্লিষ্ট একজন এক প্রশ্নের জবাবে বলেন, এখানে দলিল করতে হলে সমিতি নির্দ্ধারিত রেট এর ক্ষেত্রে কোন ছাড় হবেনা। অন্য আর এক প্রশ্নের জবাবে জনৈক ব্যক্তি বলেন, ইউএনও, ডিসি, সচিব সাহেব সবাইকে আমরা চিনি-কাউকেই আমরা পথ দেখাইনা-পথ দেখাইলে সবার চোখ খুলে যাবে। সাধারন জনগনের প্রশ্ন দলিল লেখকদের হরিলুট কারবার , সীমাহীন প্রতারনা আর স্বেচ্ছাচারিতার বিরুদ্ধে যথাযথ কতৃপক্ষ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করবেন কি ? 

  • কাহারোলে ২ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার

    কাহারোলে ২ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার। গত ১৮ মে রাতে কাহারোল থানার এস,আই প্রদীপ কুমার, এস,আই মোবারক আলী, এস,আই হারুন, এ,এস,আই কাদের, এএস,আই জালাল এর নেতৃত্বে সঙ্গীয় ফোর্স সহ ২নং রসুলপুর ইউনিয়নের কুশোট ও ভেলোয়া গ্রামে অভিযান চালিয়ে ১১ লিটার দেশীয় চোলাই মদ সহ ২ জনকে গ্রেপ্তার করেন। গ্রেপ্তারকৃতরা হল, রতন কুমার রায় (৪২), পিতা- বানু রাম রায়, সাংÑ কুশোট ও মহেশ চন্দ্র রায় (৫০), পিতা- খগেশ্বর রায়, সাং- ভেলোয়া, উভয়ের উপজেলা- কাহারোল, জেলা- দিনাজপুর। তাদের বিরুদ্ধে ১৯৯০ সালের ২২ (গ) মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনে পৃথক ২টি মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলা নং- ১০/১৮ ও ১১/১৮ তারিখ- ১৮-০৫-২০১৮ইং।

E-mail : info@dpcnews24.com / dpcnews24@gmail.com

EDITOR & CEO : KAZI FARID AHMED (Genarel Secratry - DHAKA PRESS CLUB)

Search

Back to Top